মহা সপ্তমী

সূর্য্য দেবের ওঠার আগেই, মা গঙ্গা’র সনে
নবপত্রিকা যে সাজেন, জানুক জনে জনে
কলা গাছে ব্রাহ্মণী, আর কচু গাছে কালী
হলুদ গাছে দূর্গা স্বয়ং, মেলে শক্তি’র ডালি

কার্তিকী জয়ন্তী পত্রে, বিল্বপত্রে ভোলা
রক্তদন্তিকা যে থাকেন ডালিম পত্রে খোলা
অশোক পত্রে অবস্থিত শোকরহিতা দেবী
চামুন্ডা দেবী কে যে আজ মানকচুতে সেবী

লক্ষী দেবী থাকেন ধানে, হয়ে নবম পত্র
নবপত্রিকা পড়েন বাঁধা, বাঁধে পীতসুত্র
অপরাজিতা শাখাও থাকে বাঁধা, ধরে হাল
গঙ্গাস্নানে শুদ্ধ সবাই, থাকবে জীবনকাল

এবার সময় মহাস্নানের, মৃন্ময়ী মা রাজি
মূর্তি সম্মুখে তে আরশি, রাখলেন যে কাজী
আরশি স্নানে, দূর্গা দেবী’র হবে যে আজ স্নান
মায়ের রূপের ছটায় জগৎ, থাকবে যে অম্লান

প্রাণপ্রতিষ্ঠা’র সময় এবার, জলভরা এক ঘটে
আম্রপল্লব থাকবে তাতে, নারিকেল এক বটে
ষোড়ষ উপাচারে পূজা, ভক্তিভরে করো
মায়ের আলোয় দুষ্ট দানব, ভয়ে জড়োসড়ো

 

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.