মেঘের হাসি

বেশ তো ছিলাম, মন্দ ভালোয়, দেশ যে থাকতো বুকে
ধর্ম ছিল ধর্মস্থানে, মোদের দুঃখে সুখে
আরতি’র স্বর ঢালতো মধু, আজানের স্বর মিঠে
কেক এর সাথে, বিরিয়ানি বেশ, সাথে শীত এর পিঠে

গোবিন্দ-জাফর এর জুটি, প্রতিদ্বন্দ্বী’র ত্রাস
জাফরের গোলে গোবিন্দ’র সেই ঠিকানা লেখা পাস
পিছে ছিল জন, গোল এর প্রহরী, গলতো না কোনো মাছি
“ইয়ং বয়েজ” এর সুখস্মৃতি নিয়ে, আজও যে বেঁচে আছি

হরেন জ্যাঠা’র অপারেশন এ, আবুল চাচা’র রক্ত
ইউসুফ মিয়াঁর ভাঙা চাল পেলো, হরিপদ’র হাত শক্ত
পাড়ার পুজোয়, নতুন জামা, জুতো পড়ে ছোটে কামরান
ঈদের মিঠাই খেয়ে কোলাকুলি, করে কিরণ আর ইমরান

এমন রৌদ্র হঠাৎ মন্দ্র, কোনে এক ফালি মেঘ
ধর্ম প্রহরী, দণ্ড হাতে, দিতে চান বুঝি বেগ
নতুন নতুন নিয়মাবলী, বিধি নিষেধ নিয়ে
চেনা ধর্ম অচেনা যে লাগে, লাঠি’র প্রতাপ পেয়ে

জানলাম আজ, যত কিছু ভালো, আসলে তা ছিল মন্দ
ধর্ম মানে ভালোবাসা নয়, বিবাদ এবং দ্বন্দ্ব
এমন দিনে, মনটা ব্যাকুল, সুখ নেই আশ পাশে
সূর্য্য চন্দ্র ঢেকে দিয়ে আজ, কালো মেঘ শুধু হাসে

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.